Wed. Apr 24th, 2024

পরিচালক অরূপ সেনগুপ্তের আগামী স্বল্পদৈর্ঘ্যের ছবি ‘আনএথিক্যাল’এর প্রথম পোস্টার মুক্তি পেয়েছে।

By Desk Team Jul 19, 2021

মুক্তি পেয়েছে পরিচালক অরূপ সেনগুপ্তের স্বল্পদৈর্ঘ্যের ছবি ‘আনএথিক্যাল’ অফিশিয়াল পোস্টার। তার প্রথম ছবি ‘A কে Ray’ এর পোস্টার এর মতন এই ছবিটির পোস্টার যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ এবং প্রশংসনীয়।
এই ছবিটির পোস্টার এর মধ্য দিয়ে আমরা দেখতে পাচ্ছি একটি পুরুষ এবং একটি মহিলা এবং একটি দরজা। পুরুষ এবং মহিলাটি দরজার ভেতরে অর্থাৎ একটি ঘরের ভেতরে রয়েছে। আলো এবং আঁধারধার দুটি মেশানো রয়েছে এবং দরজা দিয়ে সেই আলো-আঁধারের মিশেলের প্রতিফলন দেখা যাচ্ছে। এই পোস্টারের প্রতীকী অর্থ কি? আমাদের জীবনের ক্ষেত্রে সম্পর্কটা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ জিনিস। স্বামী-স্ত্রী মা-বাবা সকলকে নিয়েই আমাদের সম্পর্ক। কিন্তু এই সম্পর্ক সবসময় সুখের হয়না। আলো-আঁধারি দিনরাতের মতন সম্পর্কেও এই আলো-আঁধারি অবস্থা থাকে। কখনো সম্পর্ক ভালো থাকে কখনো সম্পর্ক তিক্ত হয়। পরিস্থিতির দোলাচলে পড়ে অনেক সময়েই অনিচ্ছা সত্ত্বেও অনেক কাজ আমাদেরকে করতে হয় যার জন্য পরে আমাদের অনুশোচনা হয় কিন্তু আমাদের নিষ্ঠুর বাস্তবতা কে সামনে রেখে সেই কাজগুলো করতে হয়।এমন পরিস্থিতি অনেক সময়ই ঘটে থাকে যখন একই ছাদের তলায় থেকে কাছের মানুষ ভালো আছে না বন্ধ আছে তা বোঝা সম্ভব হয় না। আমরা সামনের মানুষটিকে দেখে ভাবি জেসে সুখে রয়েছে, আমি কষ্টে রয়েছি কিন্তু ব্যাপারটা ঠিক তা নয়। প্রত্যেক মানুষের মনে কষ্ট, দুঃখ, বেদনা সবই রয়েছে’ কিন্তু আমরা সেটা দেখতে পারিনা অনেক সময় বুঝতেও চাইনা। যার থেকে সৃষ্টি হয় সম্পর্কের দ্বন্দ্ব। এমনই একটি পারিবারিক সম্পর্কের কথা বলবেন পরিচালক অনুপ সেনগুপ্ত আগামী স্বল্পদৈর্ঘ্যের ছবি ‘আনএথিক্যাল’এ।
‘আনএথিক্যাল’ ছবিটির গল্পটি হল মূলত ফ্যামিলি ড্রামা। তবে পরিচালকের এই ফ্যামিলি ড্রামার মধ্যে দিয়ে সমাজের কাছে যে সদর্থক বার্তা ছড়িয়ে দিতে চান তা বলার অপেক্ষা রাখে না। বর্তমান পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে এই সমাজ ব্যবস্থায় পরিবারের গুলির মধ্যে অনেক রকম সমস্যা দেখা দিচ্ছে রোজ দিনের জীবনে। এই ধরনের একটি পরিবারের গল্প আমাদের সামনে উপস্থিত করতে চলেছেন পরিচালক অরূপ সেনগুপ্ত।
এই স্বল্পদৈর্ঘ্য ছবিটিতে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন হিন্দি ছবি ‘ময়দান’ খ্যাত অভিনেতা তন্ময় ভট্টাচার্য্য (যিনি ব্যক্তিগত জীবনে বিভিন্ন নামকরা ফুটবল ক্লাবের হয়ে ফুটবল খেলেছেন), পৌলমী দাস, পূজা গাঙ্গুলী এবং সুপর্ণা চ্যাটার্জী।
এই ছবিটির গল্পটি লিখেছেন রুপালী সরকার। ছবিটির চিত্রনাট্য এবং সৃজনশীল পরিচালনা করেছেন পিনাক পানি দেব।
এই ছবিটি প্রযোজনা করেছেন শ্রীমতি রুপালী সরকার (আরোহন প্রোডাকশন)।
এই ছবিটির ক্যামেরার দায়িত্ব সামলেছেন রোজ আলম।ছবিটির এক্সিকিউটিভ প্রডিউসারের দায়িত্ব সামলেছেন কান্তি সরকার।
এই ছবিটির সহ পরিচালনা করেছেন রাজ্জাক।
এই ছবিটির সঙ্গীত এবং আবহসংগীত পরিচালনা করেছেন পল্লব চক্রবর্তী। এই স্বল্প দৈর্ঘ্যের ছবিতে একটি গুরুত্বপূর্ণ গান রয়েছে যেটি গেয়েছেন শিল্পী সেন। এই গানটি এই ছবিটির ক্ষেত্রে যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ।

Related Post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *