Wed. Apr 24th, 2024

পরিচালক শুভম দত্ত-র ‘হ্যাপি এন্ডিং’ : Must Watch

By Desk Team Jun 25, 2021

যারা যারা সদ্য উচ্চ মাধ্যমিক দিয়েছেন রেজাল্টের জন্য অপেক্ষা করছেন, যারা কলেজে পড়েন বা কলেজ পাস আউট করেছেন তারা অবশ্যই ‘উল্লাস’ ও টি টি প্ল্যাটফর্মের ‘হ্যাপি এন্ডিং’ ছবিটি অবশ্যই একবার দেখবেন। এই ছবিটি দেখলে আপনারাও আপনাদের কলেজ জীবনে বন্ধুত্ব প্রেম-ভালোবাসার রাগ অভিমান ইগো সবকিছুই রিলেট করতে পারবেন। তাই একটিবার অবশ্যই দেখবেন ‘হ্যাপি এন্ডিং’।


মূল গল্পটি হল চার বন্ধুর। হর্ষ যাকে তার বন্ধুরা হরি বলে ডাকে, রনজয় যাকে তার বন্ধুরা রন বলে ডাকে সুদীপ্ত যাকে তার বন্ধুরা সুদি বলে ডাকে এবং নম্রতা যাকে তার বন্ধুরা নিমকি বলে ডাকে তাদের গল্প। এই চরিত্রগুলোর মধ্যে আপনারা হয়তো নিজেদের কেও খুঁজে পেতে পারেন। তাই বলছি এরকম সুযোগ মিস করবেন না। একবারটি দেখেই ফেলুন ‘হ্যাপি এন্ডিং’।


ছবিটিতে এই তিন বন্ধু রন, হরি এবং সুদি পাহাড়ে ঘুরতে যায়। এই তিন বন্ধু অনেকদিন পর একসাথে সময় কাটাতে পাহাড়ে যায়। সেখানেই সৌভাগ্যক্রমে নিমকি অর্থাৎ তাদের আরেক বন্ধু নম্রতা সাথে দেখা হয়। এরপর গল্প বইতে থাকে থাকে তাদের মধ্যে বেড়ে ওঠা রাগ-অভিমান, ভুল বোঝাবুঝি এসমস্ত কিছু নিয়ে। কিন্তু ধীরে ধীরে তাদের মধ্যে এই ভুল বোঝাবুঝি, রাগ, অভিমান, ইগো এই সমস্তটাই কেটে যায় এই গল্পে বেশকিছু টুইস্ট রয়েছে সেগুলো বললাম না। সেগুলো দেখার জন্য অবশ্যই আপনাদের ‘হ্যাপি এন্ডিং’ ছবিটি দেখতে হবে।


ছবির পরিচালক শুভম দত্ত খুব সুন্দর পরিচালনা করেছেন। তিনি প্রত্যেকটি চরিত্র কে সমান গুরুত্ব দিয়েছেন। প্রত্যেকটি চরিত্র কে এত সুন্দর করে দর্শকদের সামনে তুলে ধরেছেন তা দর্শকদের সত্যিই মন ছুঁয়ে যাবে।
ছবিটির চিত্রনাট্য লিখেছেন প্রিয়া ঘোষ। এই চিত্রনাট্য সত্যিই অনন্য এবং মৌলিক। বন্ধুত্বের ছোট ছোট অনুভূতিগুলোকে(বন্ধুত্বের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি, রাগ, অভিমান, দুঃখ, না পাওয়ার যন্ত্রনা) তিনি খুব সুন্দর ভাবে চিত্রনাট্যের রূপ দিয়েছেন।
এই ছবিটিতে সুদীপ্ত চরিত্রে অভিনয় করেছেন সুদীপ্ত ঘোষ, রনজয় চরিত্র অভিনয় করেছেন শুভম দত্ত, হর্ষ’র চরিত্রে অভিনয় করেছেন শুভজিৎ দাস এবং নম্রতা’র চরিত্রে অভিনয় করেছেন নম্রতা ভট্টাচার্য।


এই ছবিটির সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন তমালিকা চৌধুরী। একটি মাত্র গানে তার সুর সত্যিই অনন্য এবং মৌলিক। ছবিটিতে তারেক আলাদা ছাপ ফেলে যায়। ছবিটির একমাত্র গানটি গেয়েছেন নম্রতা ভট্টাচার্য্য। তার গান ওই দৃশ্যটিকে এক পূর্ণ মাত্রায় নিয়ে গেছে।
এই ছবিটির ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক দিয়েছেন রাজদীপ দাশগুপ্ত। এই ছবিটির আবহসঙ্গীতে অসাধারণ কাজ করেছেন রাজদীপ দাশগুপ্ত।
এই ছবিটির প্রযোজনা করেছেন ‘এসডিপি ভেঞ্চারস্’ এর কর্ণধর শ্রী শুভাশিষ দত্ত।
এই অতিমারির সময় আপনার মনকে ভালো করে দেবে এই ছবিটি। এই ছবিটি উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন লোকেশনে মনোরম পরিবেশে শুট করা হয়েছে। যা আপনার মনকে ভালোলাগার দুনিয়ায় নিয়ে যাবে। এই অপূর্ব মনোরম দৃশ্য গুলিকে যিনি ক্যামেরাবন্দি করেছেন তার নাম সুশোভন চক্রবর্তী। এই ছবিটির সাজসজ্জার দায়িত্ব তার মেকাপের দায়িত্বে ছিলেন পর্ণা অধিকারী।
তাই আর অপেক্ষা না করে ঝটপট লিখে ফেলুন ‘হ্যাপি এন্ডিং’ওই কথায় আছে না ‘সব ভালো যার শেষ ভালো তার’ থুড়ি ‘শেষ ভালো যার সব ভালো তার’।

Related Post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *