“আমার সঙ্গীত জীবনের প্রথম গুরু হলেন আমার বাবা” : শালিনী মুখার্জী।

“আমার সঙ্গীত জীবনের প্রথম গুরু হলেন আমার বাবা” : শালিনী মুখার্জী।

স্টার জলসার সুপার সিঙ্গার প্রতিযোগিতার শালিনী মুখার্জীকে আপনারা সকলেই চেনেন এবং ভালোবাসেন। আজ আমরা কথা বলবো শালিনী মুখার্জী সম্পর্কে।
খুব ছোটবেলা থেকেই শালিনী গান শেখা শুরু করেন। তার বাবার কাছেই তাঁর গান শেখার হাতে খড়ি হয়। শালিনীর বাবা খুব সুন্দর গান গাইতেন। শুধু গানই নয় বাবার কাছ থেকে হারমোনিয়াম বাজানোও তিনি শেখেন। তিনি বলেন, “আমার সঙ্গীত জীবনের প্রথম গুরু হলেন আমার বাবা”।
২০০৮ সালে জি বাংলায় অনুষ্ঠিত ‘স্টার অফ বেঙ্গল’ প্রতিযোগিতায় তিনি ফার্স্ট রানারআপ হয়েছিলেন।২০০৯ সালে জিটিভিতে অনুষ্ঠিত ‘সারেগামাপা লিটল চ্যাম্পস্’ প্রতিযোগিতার টপ সিক্স পর্যন্ত তিনি পৌঁছান।

সুপার সিঙ্গার এর মঞ্চে কিংবদন্তি গায়ক সোনু নিগমের সঙ্গে গায়িকা শালিনী মুখার্জী।


এরপর ২০২১ স্টার জলসা ‘সুপার সিঙ্গার’ প্রতিযোগিতায় তিনি অংশগ্রহণ করেন। শালিনী ফাইনালিস্ট ছিলেন এবং চতুর্থ স্থান অধিকার করেন।
গ্ৰুমারদের সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন প্রান্তিকদা এবং তৃষাদির কাছ থেকে অনেক কিছু শিখেছি। অনেক টেকনিক্যাল জিনিস যেমন গলার থ্রোয়িং, কিভাবে পারফর্ম করব, টেকনিক্যাল দিকের অনেক খুঁটিনাটি বিষয় তাদের কাছ থেকে শিখেছি।
বিচারকদের প্রসঙ্গে তিনি জানান লকডাউন এর আগে কবিতাজী, শানুদা এবং জিৎদা তাকে খুব ভালোভাবে গাইড করতেন।
তিনি বলেন প্রত্যেকের কাছে ভাল সিঙ্গার হওয়াটা দরকার। প্রত্যেকটা গানকে প্রথমে ভালভাবে বোঝার দরকার এবং তার সাথে সেই গানটাকে ভালোভাবে পারফর্ম করাও একটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

কিংবদন্তি অভিনেতা প্রয়াত শ্রী সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়কে শ্রদ্ধার্ঘ্য জানিয়ে কণ্ঠশিল্পী শালিনী মুখার্জীর পারফরম্যান্স।


তার মতে মানুষের মনে বদ্ধমূল ধারণা রয়েছে যে যারা ক্ল্যাসিকাল গান তারা অনেক বেশি সংগীত সম্পর্কে ওয়াকিবহাল এবং সুদক্ষ। তাদের সবসময় আগে রাখা হয় তুলনায় যারা লোকসংগীত বা ওয়েস্টার্ন গান গান, তাদেরকে অনেকটা পিছিয়ে রাখা হয়। তিনি বলেন প্রত্যেক সঙ্গীত শিল্পীকে সমমর্যাদা দেওয়া উচিত। একজন শাস্ত্রীয় সংগীত শিল্পীকে যতটা সম্মান, ভালোবাসা দেওয়া হয় ঠিক ততটাই সম্মান, ভালোবাসা একজন লোকগীতি শিল্পী বা একজন ওয়েস্টার্ন মিউজিকের শিল্পী কেও দেওয়া উচিত।তিনি
বলেন দর্শকদের সবসময় ইন্ডিপেন্ডেন্ট আর্টিস্টদের সাপোর্ট করা উচিত। তাদের সাপোর্ট ছাড়া তারা কখনই এগোতে পারবে না। ইন্ডিপেন্ডেন্ট আর্টিস্টরা ভালো ভালো কাজ করছে কিন্তু তাদের গান তেমন ভিউজ পাচ্ছে না। তিনি বলেন ইন্ডিপেন্ডেন্ট আর্টিসদের কে দিয়ে তেমন একটা কাজ করানো হয় না, বাংলা ছবিতে তাদেরকে তেমন একটা সুযোগ দেওয়া হয়না। ইন্ডিপেন্ডেন্স আর্টিস্টদের যদি ঠিক মত সুযোগ দেওয়া হয় তারা অবশ্যই ভাল কাজ করতে পারবে। অনেক ইন্ডিপেন্ডেন্ট আর্টিস্টদের প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয় কিন্তু তারপরে সেই প্রতিশ্রুতি আর রাখা হয় না।

সুপার সিঙ্গার এর মঞ্চে কিংবদন্তি গায়ক কুমার শানুর কাছ থেকে পারফরম্যান্সের পর আশীর্বাদ পাচ্ছেন গায়িকা শালিনী মুখার্জী।


শালিনী বলেন প্রত্যেক ইন্ডিপেন্ডেন্ট আর্টিস্টকে তার নিজের পরিচিতি তৈরি করা উচিত, আর সেই পরিচিতি কখনোই কভার সং গেয়ে তৈরি হতে পারে না।
তিনি বলেন সারা বিশ্বজুড়ে যেভাবে ইন্ডিপেন্ডেন্ট মিউজিকের প্রসার ঘটছে, বাংলার ইন্ডিপেন্ডেন্ট মিউজিক ইন্ডাস্ট্রির অবস্থার পরিবর্তন হওয়াটা খুবই প্রয়োজন।
নতুন প্রজন্মের ইন্ডিপেন্ডেন্ট আর্টিস্টদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন তোমার যদি ট্যালেন্ট থাকে আর লড়ার ক্ষমতা থাকে তুমি ঠিক উঠে দাঁড়াবে। পরিস্থিতির কাছে হার মানলে চলবেনা। সবসময় ভালো কাজ করে যেতে হবে। ভালো কাজ করলে ঠিক একদিন মানুষের কাছে পৌঁছাবে। সময় লাগবে কিন্তু ভাল কাজ মানুষের কাছে ঠিক এক না একদিন পৌঁছাবে। ধৈর্য্য ধরতে হবে এবং নিজের কাজ করে যেতে হবে, হাল ছাড়লে চলবে না।

কিংবদন্তি গায়ক হরিহরন এর সঙ্গে শালিনী মুখার্জী।


আড্ডাটাইমসের ওয়েব প্লাটফর্মে ‘অথৈজলে’ ওয়েব সিরিজে তার সুরে তার গাওয়া গান বেশ কিছুদিন আগে মুক্তি পেয়েছে। এছাড়াও জি মিউজিক হিন্দিতে তার কথা এবং সুরে এবং তার গাওয়া হিন্দি গানও মুক্তি পেয়েছে বেশ কিছুদিন আগে।
আগামী প্রজেক্ট সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন তার বেশ কিছু অরিজিনাল গান ইউটিউব চ্যানেল থেকে রিলিজ করবেন। নতুন বাংলা ছবিতেও তার গাওয়া গান আসতে চলেছে। জনপ্রিয় সংগীত পরিচালক স্যাভি’র সুরেও তার গাওয়া একটি বাংলা ছবির গান আসতে চলেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back To Top